অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম [2023 নতুন পদ্ধতিতে]

যেকোন দেশেই ট্রেন কে সবচেয়ে সাশ্রয়ী, দ্রুত, নিরাপদ এবং আনন্দদায়ক পরিবহন বলা হয়ে থাকে। যার কারণে আপনি যদি দূরপাল্লার কোন যায়গা ভ্রমনের কথা ভেবে থাকেন, তাহলে ট্রেন আপনার জন্য ঝামেলা বিহীন সবচেয়ে সেরা একটি যানবাহন।

ট্রেনের যাত্রা যেমন খুবই মজার, তেমনি লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে ট্রেনের টিকিট কাটাও অনেকটা ঝামেলার। অনেক সময় ঈদ বা সরকারি ছুটির দিন গুলোতে ট্রেনের টিকিট হাতে পাওয়া অনেকটা সোনার হরিণ পাওয়ার মতো কষ্টসাধ্য ব্যাপার হয়ে থাকে। 

তবে নিরাপদে এবং আরো সহজে ট্রেন যাত্রার জন্য রেলওয়ে অনলাইনে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট কাটার নতুন নিয়ম দিয়েছে, যা অনুসরণ করে আপনি সহজেই ঘরে বসে সহজেই আপনার বিকাশের সাহায্য অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কিনতে পারবেন। 

আর বর্তমান সময়ে Bangladesh Railway E Ticket System টি ৫ বছরের জন্য Shohoz Synesis Vincen Join Venture পরিচালনা করবে এবং তারা অনলাইনে ট্রেনের টিকিট বিক্রয়ের সম্পূর্ণ দায়িত্ব পরিচালনা করবে। 

মোবাইলে ট্রেনের টিকিট বুকিং

অনেকে রয়েছেন যারা অনলাইনে ট্রেনের টিকিট ক্রয় করতে চান, কিন্তু কিভাবে অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটতে হয় তা জানেন না। 

মূলত আমাদের আজকের টিউটোরিয়াল টি তাদের জন্যই তৈরি করা হয়েছে, এখানে আমরা চেষ্টা করেছি সহজেই বিকাশে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম, অগ্রিম অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার সময় এবং ট্রেনের টিকিট কতদিন আগে কাটা যায় এই সকল খুটিনাটি সকল বিষয় গুলো স্টেপ বাই স্টেপ আলোচনা করার। তো চলুন কথা না বাড়িয়ে আমাদের মূল আলোচনায় ফিরে যাওয়া যাক। 

অগ্রিম অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার সময়

অনেকে রয়েছেন যারা মনে করেন ট্রেনের টিকিট বুকিং এর জন্য নির্দিষ্ট কোন সময় সীমা বেঁধে দেয়া রয়েছে, আসলে এটি ভুল ধারণা। আপনি অনলাইনে রাত দিন ২৪ ঘন্টার যে কোন সময় ট্রেনের টিকিট কাটতে পারবেন। 

এছাড়াও আপনি চাইলে আগামী ৪দিনের টিকিট ও অনলাইনে অগ্রিম কাটতে পারবেন। চলুন Online E Train Ticket Booking করার পদ্ধতি টি জেনে নেয়া যাক।

অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম

এই পার্টে আমরা ওয়েবসাইট থেকে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম টি স্টেপ বাই স্টেপ আলোচনা করবো, যাতে করে আপনি সহজেই কয়েক মিনিটে আপনার গন্তব্যের রেলওয়ে টিকিট টি ক্রয় করতে পারেন। 

স্টেপ ১: আপনার একাউন্টটি রেজিষ্ট্রেশন করুনঃ

প্রথমে আপনাকে Bangladesh Railway E Ticketing Service এ একটি একাউন্ট করে নিতে হবে, তাই https://eticket.railway.gov.bd/register/en লিংকটিতে ভিজিট করুন. 

এরপরে সেখানে উপরের দিকে Register বাটনে ক্লিক করার পরে নিচে দেখানোর মতো একটি ফরম দেখতে পারবেন, সেখানে ইংরেজিতে আপনার নাম, মোবাইল নাম্বার, ইমেইল, এবং আপনার একটি ৮ অক্ষরের পাসওয়ার্ড দিতে হবে।

এরপরে নিচে ড্রপডাউন মেনুবার থেকে আপনার identification type select করুন, অর্থাৎ আপনি যদি NID দিয়ে রেজিষ্ট্রেশন করতে চান তাহলে NID select করুন, আর আপনি যদি Birth Certificate দিয়ে রেজিষ্ট্রেশন করতে চান তাহলে Birth Registration Number option টি সিলেকশন করুন, এবং সেই নাম্বার টি বসিয়ে দিন। 

এরপরে নিচে পোস্ট কোড এবং ঠিকানার বক্স দেখতে পাবেন, সেখানে সঠিক পোস্ট কোড এবং ঠিকানা টি দিয়ে ফিলআপ করুন, এরপরে সাইন আপ বাটনে ক্লিক করে রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে।

স্টেপ ২: মোবাইল ভেরিফাই করুনঃ

Sign Up এ click করার পরে, আপনাকে পরবর্তী পেইজে নিয়ে যাবে, এই পেইজে আপনার ফোন ভেরিফাই করতে হবে। তাই আপনার দেয়া ফোন নাম্বার এ একটি ৬ ডিজিটের ভেরিফাই কোড আসবে, সেটি কোড টি আসার ৪৫ সেকেন্ডের মধ্যে সম্পূর্ণ কোডটি বক্সে বসিয়ে দিন এবং এরপরে continue তে ক্লিক করুন।

স্টেপ ৩: একাউন্টে লগইন করুনঃ

আপনার Verification Successfully কমপ্লিট হওয়ার পরে আপনার প্রোফাইল এ লগইন হয়ে যাবে, আর যদি প্রোফাইলে না নিয়ে যায়, তাহলে উপরে ডানপাশে লগইন বাটনে ক্লিক করে, আপনার দেয়া ফোন নাম্বার এবং পাসওয়ার্ড টি দিয়ে নতুন করে লগ ইন করুন।

স্টেপ ৪: ট্রেন সার্চ করুনঃ

লগইন শেষে আপনাকে Home পেইজে নিয়ে যাবে, সেখান থেকে আপনি যেই যায়গায় আছেন সে যায়গায় স্টেশন এবং যেই গন্তব্যে যাবেন সে স্টেশন অনুযায়ী ট্রেন সিলেকশন করুন। 

  • From and To: এখানে আপনি From এবং To দুটি অপশন দেখবেন। From এর অর্থ হলো আপনি যে যায়গার স্টেশন থেকে গন্তব্যের উদ্দেশে রওনা দিবেন, আর To অর্থ হলো আপনি যেই গন্তব্যে যাবেন। 
  • Date of Journey: এর অর্থ হলো আপনি কয় তারিখে ভ্রমন করতে চান তার সঠিক তারিখ। 
  • Choose Class: এখানেও একই রকম ভাবে অপশন টিতে আপনার comfortable class choose করে পূরণ করুন এবং নিচে সবুজ Find Ticket বাটনে ক্লিক করুন।

স্টেপ ৫: ট্রেন এবং সিট চয়েস করুনঃ

এই পেজে আপনি আপনার যাত্রার সময় ও আসনের ধরণ সহ এই সকল কিছুই আপনার পছন্দমতো বাছাই করে নিতে পারবেন। এক্ষেএে প্রথমে View Seat বাটনে ক্লিক করে Available seat গুলো দেখে নিন এবং সেগুলো থেকে আপনার পছন্দের ট্রেনের সিট বুকিং করুন। 

আপনার Seat চয়েস করা শেষে পরের অপশনে যেতে Continue Purchase এ ক্লিক করুন। 

স্টেপ ৬: আপনার তথ্য দিনঃ

  • এতক্ষণ যে সিট গুলোকে বুকিং করেছেন, সে সিট গুলোতে যারা যাবে তাদের নাম এবং তারা শিশু নাকি প্রাপ্ত বয়স্ক তা সিলেক্ট করে নিন। 
  • শিশু হলে Child আর প্রাপ্ত বয়স্ক হলে Adult সিলেক্ট করুন, আপনি যেই ধরণ চয়েস করবেন সে ধরণ অনুয়ায়ী ট্রেনের ভাড়া সমন্বয় করা হবে।

স্টেপ ৭: আপনার ট্রেনের টিকিটের ভাড়া পরিশোধ করুনঃ

এই স্টেপে আপনি আপনার সম্পূর্ণ ভাড়ার তথ্য জানতে পারবেন, যেখানে মোট ভাড়ার পরিমান, ব্যাংক চার্জ, ভ্যাট, সহ আনুষাঙ্গিক খরচ গুলো দেখতে পারবেন। পাশাপাশি আপনি ভাড়া পরিশোধের জন্য মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশে ট্রেনের টিকিট কাটতে পারবেন অথবা আপনার Debit or Credit Card অপশনের মধ্য যেটি সুবিধা হয় সেটির মাধ্যমে কাটতে পারবেন। 

আপনার পেমেন্ট অপশন সিলেক্ট করে Confirm Purchase বাটনে ক্লিক করুন। 

ফাইনাল স্টেপঃ আপনার ট্রেনের টিকিট টি প্রিন্ট করে নিন।

আপনার পেমেন্ট করা সম্পন্ন হওয়ার পরে, আপনার টিকিট টি বাংলাদেশ রেলওয়ে ই টিকিট সিস্টেম থেকে ইস্যু করা হবে, পাশাপাশি এটি নিজ থেকেই আপনার ব্রাউজারে পিডিএফ আকারে ডাউনলোড হয়ে যাবে। অথবা আপনি চাইলে Purchase History থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন, 

এছাড়াও টিকিটের এক কপি আপনার দেয়া ইমেইল এ পৌছে যাবে, সেখান থেকেও আপনি চাইলে প্রিন্ট করে নিতে পারবেন। টিকিট টি পাওয়ার পরে A4 size paper এ প্রিন্ট করে সাথে রাখুন।

সংক্ষিপ্ত ভাবে বলতে গেলেঃ অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য প্রথমে অবশ্যই eticket.railway.gov.bd ওয়েব সাইটে প্রবেশ করুন, এরপরে পর্যায়ক্রমে সঠিক ভাবে আপনার নাম, ইমেইল এবং মোবাইল নাম্বার টি দিয়ে একাউন্ট রেজিষ্ট্রেশন এবং প্রোফাইল আপডেট সম্পূর্ণ করে নিন। এরপরে আপনার স্টেশন এবং মূল গন্তব্যের তারিখের ট্রেন টি সার্চ করে, সর্বশেষ আসন বাছাই এবং অনলাইনে পেমেন্ট করে টিকিট বুকিং কনফার্ম করে নিন। 

ঈদে ট্রেনের টিকিট নিয়ে সর্বশেষ আপডেট 

ঈদে আপনার ট্রেনের ভ্রমন কে আরো নিরাপদ করার জন্য মাঝেমধ্যে বাংলাদেশ রেলওয়ে কিছু নতুন নিয়ম নিয়ে আসে, এর মধ্যে অন্যতম হলো এবারের অনলাইনে এবং সরাসরি ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম টি। 

আপনি যদি এবার টিকিট কাউন্টার থেকে সরাসরি ট্রেনের টিকিট কাটতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা জন্ম নিবন্ধন প্রয়োজন হবে। আপনি যখন ভ্রমনে থাকবেন তখনো দুইটির যেকোন একটির এক কপি সাথে করে নিয়ে আসতে হবে।

আপনি একটি জাতীয় পরিচেয় পত্র বা জন্ম নিবন্ধনের বিপরীতে সর্বোচ্চ ৪ টি পর্যন্ত ট্রেনের টিকিট ক্রয় করতে পারবেন। তাই আপনারা যদি একসাথে অনেকে রেলওয়ে ভ্রমন করতে চান, অবশ্যই রেলওয়ে টিকিট কাটার সময়ে ২টি জন্ম নিবন্ধন বা জাতীয় পরিচয় পত্র সাথে করে নিয়ে যাবেন।

যদি কোন কারণে ট্রেনের টিকেট ফেরত দেয়ার প্রয়োজন হয়, তাহলে কিভাবে ট্রেনের টিকিট ফেরত দিতে হয় সেটির নিয়ম ফেরত দেয়ার পূর্বে জেনে নিন।

Sharing is Caring: