[সহজেই] অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম 2023

যারা অনলাইনে একদম নতুন তাদের অনেকে রয়েছেন যারা তাদের ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে গিয়ে অনেকটা ঝামেলা পোহাতে হয়। বিশেষ করে যারা নতুন ভোটার আইডি কার্ডের জন্য এপ্লাই করেছেন তাদের অনেকে অনলাইন ভোটার আইডি কপি টি কিভাবে ডাউনলোড করবেন তা সম্পর্কে জানেন না! 

মূলত তাদের জন্যই আমাদের এই অনলাইন থেকে নিজের ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম টিউটোরিয়াল টি তৈরি করা হয়েছে। এই পদ্ধতি অনুসরণ করে আপনি সহজেই NID/স্লিপ নম্বর এবং মোবাইল নাম্বার দিয়ে সহজেই আপনার ভোটার আইডি কার্ড চেক, নতুন ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে কি কি প্রয়োজন?

নতুন বা পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড যেটিই করুন না কেন, প্রথমে আপনার কিছু ইনফরমেশন প্রয়োজন হবে। সেগুলো হলোঃ

  • জন্ম তারিখ
  • সচল মোবাইল নাম্বার 
  • ভোটার নিবন্ধন স্লিপে নম্বর
  • আপনার বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানার বিভাগ, জেলা এবং উপজেলা
  • সচল একটি স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটার
  • আরও একটি স্মার্ট ফোন (ফেইস ভেরিফাই করার জন্য)

ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম

আপনি সহজেই আমাদের নিচের নিয়ম টি অনুসরণ করে ছবি সহ ভোটার নম্বর দিয়ে আইডি বের করতে পারবেন, এটি কোন কঠিন কাজ নয়। তো চলুন কিভাবে অনলাইন থেকে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করবেন তা সহজেই জেনে নেয়া যাক।

স্টেপ ১ঃ NID Wallet অ্যাপ টি ডাউনলোড করে নিন

NID Wallet টি মূলত নির্বাচন কমিশনার প্রদত্ত একটি Face Verification অ্যাপ যেটি আপনি গুগল প্লে স্টোরে সার্চ করলে অথবা এখানে ক্লিক করলেই পেয়ে যাবেন। এই অ্যাপটি আপনার প্রয়োজন হবে আপনার ফেইস ভেরিফাই করার জন্য, তাই এটিকে প্রথমে আপনার অন্য স্মার্ট ফোনটিতে ইনস্টল করে নিন।

স্টেপ ২ঃ আপনার অ্যাকাউন্টটি রেজিস্ট্রেশন অথবা লগ ইন করুন

এবার এনআইডি সেবার ওয়েব সাইটটিতে আপনাকে প্রবেশ করতে হবে এবং সেখান আপনার NID স্লিপ নম্বর, ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার অথবা জাতীয় পরিচয় পত্রের মাধ্যমে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন। 

এর জন্য প্রথমে আমাদের নিচের প্রসেস টি অনুসরণ করে আপনাকে অ্যাকাউন্ট সাইন আপ বা রেজিস্ট্রার করতে হবে। 

  • প্রথমে এখানে ক্লিক করে নির্বাচন কমিশনারের ভোটার নিবন্ধন ওয়েব পেইজে যেতে হবে। 
ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন
  • এরপরে নতুন অ্যাকউন্ট তৈরির জন্য রেজিস্ট্রার অপশনে ক্লিক করুন।
অনলাইন থেকে নিজের ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন
  • এবার আপনি যদি নতুন ভোটার হয়ে থাকেন তাহলে আপনাকে যেই ভোটার আবেদনের ফরম নম্বর টি দেয়া হয়েছে সেটি প্রথম বক্সটিতে লিখুন। আর যদি ইতিপূর্বে আপনার কার্ড থাকে তাহলে আপনার স্মার্ট কার্ড নম্বর / জাতীয় পরিচয় পত্র / ভোটার আইডি কার্ডের নম্বরটি লিখুন।
  • এরপরে নিচের বক্সে জন্ম তারিখ এবং বক্সে দেখানো ক্যাপচা নম্বরটি টাইপ করে সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন 
online-nid-card-download
  • এরপরে উপরে দেখানো ছবির মত একটি পপ আপ উইন্ডো আসবে যেখানে সঠিক ভাবে আপনার প্রথমে আপনার বর্তমান ঠিকানার বিভাগ, জেলা এবং উপজেলা সিলেক্ট করুন। এরপরে আপনার স্থায়ী ঠিকানা থাকলে একই ভাবে সেখানের বিভাগ, জেলা এবং উপজেলা সিলেক্ট করুন। সিলেকশন শেষে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করুন
Bangladesh NID Application System
  • এরপরের পেজে আপনার একটি সক্রিয় মোবাইল নাম্বার দিতে হবে, এবং নিশ্চিত হতে হবে যে আপনার দেয়া নাম্বার টি সক্রিয় অবস্থায় আপনার ফোনে রয়েছে। নাম্বার দেয়া শেষে বার্তা পাঠানে ক্লিক করুন এবং অপেক্ষা করুন, কারণ আপনার দেয়া ফোন নাম্বার টিতে একটি ওটিপি পাঠানো হবে।
  • ওটিপি টি পাওয়ার পর, সেটি পরবর্তী বক্সটিতে সঠিক ভাবে দিয়ে বহাল বাটনে ক্লিক করুন। 

স্টেপ ৩ঃ আপনার ফেইস ভেরিফাই করুন

অনলাইন থেকে নিজের ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড
  • এই ধাপটি অনেকটা গুরুত্বপূর্ণ, এখানে আপনাকে আপনার ফেইস ভেরিফাই করতে হবে, এক্ষেত্রে আপনি পূর্বে বহাল বাটনে ক্লিক করার পরে একটি QR কোড দেখতে পারবেন, এটি মূলত আপনাকে স্ক্যান করতে হবে। 
  • আপনার যেই আরেকটি স্মার্ট ফোনটিতে NID wallet অ্যাপ টি ইনস্টলেশন করেছিলেন সেটি ওপেন করুন, এবং সেখানে আপনার ভাষা সিলেক্ট করে এরপরে Agree and continue বাটনে ক্লিক করে QR কোড টি সে ফোনে স্ক্যান করে নিন।
NID wallet অ্যাপ
  • স্ক্যান করার সাথে সাথে আপনার ফেইস ভেরিফাই করার অপশন টি সামনে চলে আসবে। এখানে একটি প্রিভিও দেখানো হবে কিভাবে আপনার ফেইস টি ভেরিফাই করবেন সেটি সহজেই বুঝার জন্য। 
  • Start Face Scan এ ক্লিক করুন, আপনার মুখটি সেলফি ক্যামেরার দিকে সোজাসুজি ধরে এবং চোখ ক্যামেরার দিকে তাক করে আপনার মাথাটি একবার ডান দিকে এবং আরেকবার বাম দিকে ঘুরান। আপনার সবকিছু যদি ঠিকঠাক থাকে তাহলে স্ক্রিনে OK নোটিফিকেশন দেখাবে সেখানে ক্লিক করুন। 
অনলাইন থেকে নিজের ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড

এরপরেই “সেট পাসওয়ার্ড” এর অপশনটি আসবে, সেখানে ক্লিক করে পাসওয়ার্ড সেট করার অপশন পাবেন। সেখান থেকে পাসওয়ার্ড টি সেট করুন, এবং মনে রাখার জন্য কোথাও নোট করে রাখুন। 

কারণ এই পাসওয়ার্ডটির সাহায্য আপনি যেকোন সময়ে লগইন করে খুব সহজেই আপনার অ্যাকাউন্টটি অ্যাক্সেস করতে পারবেন, এমনকি অ্যাকাউন্টে লগইন করে যেকোন সময় আপনার অনলাইন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন পাশাপাশি ভবিষ্যতে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করতে পারবেন।

সর্বশেষ আপনার অনলাইন ভোটার আইডি কার্ড টি ডাউনলোড করুন

আপনার অ্যাকাউন্ট টি সাকসেসফুল ভাবে তৈরি হওয়ার পর এবার NID এর ওয়েবসাইট টিতে লগইন হয়ে যাবে, সেখানে আপনার প্রোফাইল টি দেখতে পারবেন। 

ডানপাশে একদম নিচের দিকে তাকালে আপনি ডাউনলোড অপশন দেখতে পারবেন, সেখান থেকে সহজেই আপনার পুরাতন বা নতুন জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করতে পারবেন সহজেই।

কিভাবে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করার নিয়ম

অনেকে রয়েছেন যারা জানতে চান যে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় জাতীয় পরিচয় পত্র বের করা যায় কিনা সেটি, এর সংক্ষিপ্ত উত্তর হলো না! 

শুধুমাত্র মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বের করার কোন অপশন এখনো পর্যন্ত নেই। তবে আপনার যদি জন্ম তারিখ, জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম্বার অথবা ভোটার নিবন্ধন স্লিপ নাম্বার জানা থাকলে সেগুলোর সাহায্য NID BD ওয়েবসাইট থেকে সহজেই রেজিষ্ট্রেশন করে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন। 

সর্বশেষ কথা

আশাকরি আমাদের দেখানো প্রসেসে আপনি সহজেই অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন। যদি কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন, আমরা যথাসম্ভব সাহায্য করার চেষ্টা করবো। 

আর এধরনের আরো বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ টিউটোরিয়াল গুলো পাওয়ার জন্য আমাদের সাথেই থাকুন।

আরও পড়ুনঃ

Sharing is Caring: