[সহজে] ১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম

অনেকের পুরানো জন্ম নিবন্ধন হওয়াতে তাদের জন্ম নিবন্ধনের ডিজিট গুলো সাধারণত ১৩ অথবা ১৬ সংখ্যার হয়ে থাকে, যার কারণে তারা অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারেন না। 

তবে চিন্তিত হওয়ার কারণ নেই, আমাদের আজকের টিউটোরিয়ালে মূলত আমরা শেয়ার করবো সহজে আপনি কিভাবে এই ১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করবেন, পাশাপাশি ১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন ১৭ ডিজিট করার নিয়ম নিয়েও আমরা আলোচনা করবো। 

তো চলুন আমাদের ১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম টিউটোরিয়াল টি শুরু করা যাক।

১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম

যেটি আমরা পূর্বেও বলেছিলাম মূলত আমাদের যাদের পুরাতন জন্ম নিবন্ধন রয়েছে অর্থাৎ নতুন অনলাইন জন্ম নিবন্ধন করিনি তাদের বেশিরভাগ জন্ম নিবন্ধন ১৬ ডিজিটের হয়ে থাকে। যেগুলো সাধারণত হাতে লিখা জন্ম নিবন্ধন ছিলো এবং পৌরসভা বা ইউনিয়ন পরিষদের রেজিস্ট্রার বইতে লিপিবদ্ধ থাকতো। সময়ের সাথে সাথে যখন অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন করার নিয়ম এসে যায়, তখন এসব পুরাতন লিপিবদ্ধ ডেটা গুলোকে অনলাইনে করা হয়েছে।

তবে সমস্যা হলো বর্তমান সময়ে আপনি যদি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে চান সেক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার জন্ম নিবন্ধন ১৭ ডিজিটের হতে হবে। আর এক্ষেত্রে আপনার পুরাতন জন্ম নিবন্ধনটিকে অনলাইনে যাচাইয়ের জন্য, ১৬ ডিজিট থেকে ১৭ ডিজিটে রূপান্তর করতে হবে। 

এখানে আমরা সংক্ষিপ্ত ভাবে আমরা আলোচনা করছিঃ 

আপনার ১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধনকে ১৭ ডিজিট করার জন্য, প্রথমেই আপনার পুরাতন জন্ম নিবন্ধনটির প্রথম ১১ ডিজিটের পরে বাড়তি ভাবে একটি “০” বসাতে হবে অথবা ১৬ ডিজিটের একদম শেষের ৫ ডিজিটের আগে একটি “০” বসিয়ে দিতে হবে। (দুইটিই একই কথা।) 

নিচে আমরা একটি ছবি শেয়ার করেছি সেটিকে ভালোভাবে খেয়াল করুনঃ

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম
১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম

এখানে শেষের দিকের ৫ সংখ্যা বা ডিজিট হলো ০১৩১১। আমরা কেবল এই শেষের ৫ ডিজিটের পূর্বে একটি বাড়তি ভাবে “০” যোগ করেছি, এই বাড়তি ভাবে “০” টিকে যোগ করার ফলে এখন সংখ্যাটি দেখতে অনেকটাই এমন হবে ০০১৩১১। 

এইভাবেই আপনার ১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন কে ১৭ ডিজিট করতে হবে। অতঃপর এই ১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন নম্বর দিয়ে আপনি অনলাইনে সহজেই আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন।

আরও বিস্তারিত ভাবে জানতে পড়ুনঃ কিভাবে সহজে আপনার ১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন কে ১৭ ডিজিটে রূপান্তর করবেন?

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম

এবার আসুন আমাদের এই ১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধনটি কিভাবে যাচাই করবেন সে বিষয়ে জেনে নেয়া যাক। যদিও প্রক্রিয়াটি বেশ সহজ, নিচে দেখানো ধাপ গুলো পর্যায়ক্রমে অনুসরণ করুন।

ধাপ ১ঃ প্রথমে আপনার ফোন অথবা কম্পিউটারের ব্রাউজার ওপেন করুন, এবং সেখানে https://everify.bdris.gov.bd/ ওয়েব সাইটি ভিজিট করুন। অথবা লিংক টিতে ক্লিক করুন। 

১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম

ধাপ ২ঃ এখানে প্রথমে Birth Registration Number এর একটি বক্স দেখতে পারবেন, সেখানে আপনার ১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন নাম্বার টি বসিয়ে দিন। এরপরে নিচের Birth of Date এর বক্সে (Year-Moths-Date) এই ফরমেটে প্রথমে আপনার জন্ম নিবন্ধনে থাকা জন্ম সাল টি সম্পূর্ণ লিখুন, এরপরে মাস এবং শেষে তারিখটি লিখুন। 

সর্বশেষ নিচে একটি একদম সহজ গানিতিক প্রশ্ন দেখতে পারবেন। সেটি হতে পারে কোন সংখ্যার যোগ, বা বিয়োগ করতে বলা হতে পারে। এক্ষেত্রে সেটির সমাধান বের করে নিচের The answer is বক্সটিতে লিখুন এবং “Search” বক্সে ক্লিক করুন।

ধাপ ৩ঃ এখন আপনার সামনে আপনার জন্ম নিবন্ধন টি দেখাবে এবং এভবে আপনি সহজেই যে কারোর ১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে দিতে পারবেন। 

যদি এই জন্ম নিবন্ধন ডাউনলোড করতে চান, সেক্ষেত্রে Save as PDF সিলেক্ট করে PDF হিসেবে save করে নিতে পারবেন এবং যেকোন প্রিন্টারে প্রিন্ট করে নিতে পারবেন। 

সর্বশেষ 

আমরা যথাসম্ভব চেষ্টা করেছি ১৬ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম টি একদম সহজ ভাবে আপনাদের কাছে উপস্থাপন করার জন্য। আশাকরি আপনার বুঝতে কোন প্রকারের অসুবিধা হয়নি। যদি কোন প্রকারের প্রশ্ন থাকে তাহলে অবশ্যই তা কমেন্ট বক্সে জানাবেন।

Sharing is Caring: